আজ বিএনপি স্থায়ী কমিটির বৈঠক, আসতে পারে কর্মসূচির সিদ্ধান্ত

বিএনপির নতুনভাবে সাজানো জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক আহ্বান করেছেন দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আজ বৃহস্পতিবার রাত ৮টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে এই বৈঠক হবে। বিএনপির নতুন কমিটি গঠনের পর দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির প্রথম বৈঠক এটি। এ ছাড়া আগামী রোববার রাতে ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের সাথে বৈঠকে বসবেন বেগম জিয়া। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

 

 

 

 
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নতুন কমিটি ঘোষণার পর সাংগঠনিক পর্যালোচনা করা হবে বৈঠকে। এ ছাড়া দেশের চলমান বিভিন্ন ইস্যুতে কর্মসূচির ব্যাপারে করণীয় ঠিক করতে দলের নীতিনির্ধারণী ফোরাম স্থায়ী কমিটি এবং ২০ দলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে বৈঠকগুলো করবেন খালেদা জিয়া। দুই বৈঠকেই মধ্যবর্তী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবি, দফায় দফায় গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাবের প্রতিবাদ, সুন্দরবনের অদূরে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদ এবং সারা দেশে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদসহ বেশ কিছু ইস্যুতে কর্মসূচির সিদ্ধান্ত নেবে বিএনপি। কুরবানীর ঈদের আগেই এই কর্মসূচির ঘোষণা হতে পারে বলে দলের স্থায়ী কমিটির এক সদস্য জানিয়েছেন। এ ছাড়া বিশেষ করে গুলশানের হোলে আর্টিজান রেস্টুরেন্টে জঙ্গি হামলার পর বিএনপি চেয়ারপারসনের নেয়া উদ্যোগের আলোকে জাতীয় ঐক্য গঠনের ব্যাপারেও বৈঠকে আলোচনা হবে।

 

 

 

 

 
তিনি জানান, বিএনপির সাংগঠনিক গতি বাড়াতে এক নেতার এক পদ নীতি কার্যকরের ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। কিন্তু এখনো বহু নেতার একাধিক পদ রয়েছে। সুতরাং এক নেতার এক পদ এই বিষয়টি নিয়ে আজকের বৈঠকে আলোচনা করে সাংগঠনিক নির্দেশনা দেয়া হবে। পাশাপাশি আরো বেশ কিছু জনগুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারে বৈঠকে আলোচনা হবে বলে তিনি জানান।

 

 

 

 

 
বিএনপির সিনিয়র একাধিক নেতা জানান, গত শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে দেশের চলমান সঙ্কট উত্তরণে সরকারের মেয়াদপূর্ণের আগেই মধ্যবর্তী নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এলডিপি) চেয়ারম্যান কর্নেল অলি আহমেদ। তিনি বলেছেন, আমাদের দাবি, সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি মধ্যবর্তী জাতীয় সংসদ নির্বাচন, যা হবে সুষ্ঠু অবাধ এবং নিরপে। এর কোনো বিকল্প নেই। আশা করি এই ব্যাপারে সরকার পদপে নেবেন। অন্যথায় দেশে স্থিতিশীলতা বজায় রাখা ও জনগণকে আস্থায় নেয়া সম্ভব হবে না। সঙ্কটও কাটবে না। কর্নেল অলির এমন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হতে পারে। যদিও ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপির সব সময়ই একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে।

 

 

 

 

 
সূত্র জানায়, আজকের সভায় দেশের সাম্প্রতিক বিষয় ছাড়াও সাংগঠনিক বিভিন্ন বিষয় নিয়েও আলোচনা হতে পারে। নতুনভাবে জাতীয় কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর বেশ কিছু ত্রুটি ধরা পড়েছে। বিশেষ করে নির্বাহী কমিটির সদস্যদের নাম ক্রমানুসারে সাজানোর ক্ষেত্রে দেখা গেছে, অনেক সিনিয়র নেতাকে জুনিয়রের পরে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনা-সমালোচনা তৈরি করে। ফলে এসব ব্যাপারে স্থায়ী কমিটির বৈঠকে আলোচনা হবে।

 

 

 

 

 

 
গত ২১ জুলাই দলের সিনিয়র নেতাদের সাথে জরুরি বৈঠকে বসেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। গত ৬ আগস্ট দুই নতুন মুখ যুক্ত করে স্থায়ী কমিটির ১৭ সদস্যসহ পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি ঘোষণা করে বিএনপি। নির্বাহী কমিটির আকার বাড়িয়ে করা হয় ৫০২ সদস্যের।
২০ দলের সাথে বৈঠক রোববার : আগামী রোববার ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের সাথে বৈঠক করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ওই দিন রাত ৮টায় চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে। উৎস : নয়াদিগন্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *