অগ্নিকাণ্ডে নিঃস্ব বস্তিবাসীদের জন্মদিনের খরচ দিলেন ফারিয়া

গত রবিবার দুটি মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে গেছে বাংলাদেশের মানুষদের জীবনে। ভোরবেলা আগুন লেগে পুড়ে গেছে ঢাকার মিরপুর ১২ নম্বরের পল্লবীর ইলিয়াস মোল্লা বস্তির হাজার পাঁচেক ঘর। একই দিনে নেপালে বাংলাদেশি বিমান দুর্ঘটনায় অর্ধশতাধিক যাত্রীর প্রাণহানি হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। দেশের এ পরিস্থিতিতে নিজের জন্মদিন উদ্‌যাপন করার সব উৎসাহ হারিয়ে ফেলেছেন ছোট পর্দার তারকা শবনম ফারিয়া।

গতকাল ১৪ মার্চ ছিল ফারিয়ার জন্মদিন। আগে থেকেই আপনজনদের নিয়ে পার্টির আয়োজন করেছিলেন তিনি। সবকিছু ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু দুটি বড় ঘটনায় কোনো আনন্দ উত্সব করা থেকে নিজেকে বিরত রাখেন এই অভিনেত্রী। জন্মদিনের জন্য বরাদ্দ বাজেট ক্ষতিগ্রস্ত বস্তিবাসীদের মধ্যে কয়েকটি পরিবারকে দান করেন তিনি।

গতকাল বুধবার শবনম ফারিয়া তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ‘জীবনে এই প্রথম আমি নিজের জন্মদিন ”উদ্‌যাপন” করতে পারলাম না। কিছু ঘটনা আমার হৃদয়ে নাড়া দিয়েছে! আমি জানি জীবন অনিশ্চিত, কিন্তু এটি আমাকে ভীষণভাবে আঘাত করেছে! তবে হ্যাঁ, আমাকে বলতেই হবে, আমি খুব ভাগ্যবতী। মানুষের প্রচুর আশীর্বাদ আর নিঃস্বার্থ ভালোবাসা পেয়েছি! তাই যাঁরা আমাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, আমার জন্য দোয়া করেছেন আর বাসায় কেক আর উপহার পাঠিয়েছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। আমার বিষণ্ন দিনটিকে বিশেষ করে তোলার জন্য ধন্যবাদ।’

কালের কণ্ঠকে ফারিয়া বলেন, ‘বাবাকে ছাড়া এটি আমার প্রথম জন্মদিন। আমি ছিলাম তার আদরের ছোট মেয়ে। তাছাড়া ঘটনা দুটি নিয়ে আমি মর্মাহত ছিলাম। সেই সময়টা সেলিব্রেট করার ইচ্ছা আর আমার ছিল না। আমি চেয়েছিল জন্মদিনের পার্টির খরচ দিয়ে গরীব বস্তিবাসীদের একটা হেল্প করতে। কিন্তু সবাইকে তো হেল্প করা সম্ভব না। তাই যে কয়জনকে পারা যায়, তাদের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেই।’

Comments are closed.